Author Archives: Admin

(৯) পেশাব-পায়খানা থেকে বের হওয়ার পর ‘আল-হামদুলিল্লা-হিললাযি আযহাবা আন্নিল আযা ওয়া ‘আফানী’ দু‘আ পাঠ করা

(৯) পেশাব-পায়খানা থেকে বের হওয়ার পর ‘আল-হামদুলিল্লা-হিললাযি আযহাবা আন্নিল আযা ওয়া ‘আফানী’ দু‘আ পাঠ করা : টয়লেট সারার পর বলবে, ‘গুফরা-নাকা’, যা ছহীহ হাদীছ দ্বারা প্রমাণিত।[1] ‘আল-হামদুলিল্লা-হিললাযি.. মর্মে বর্ণিত হাদীছ যঈফ। عَنْ أَنَسِ بْنِ مَالِكٍ قَالَ كَانَ النَّبِيُّ  إِذَا … Continue reading

Posted in 02. পবিত্রতা (ওযূ ও তায়াম্মুম), পেশাব-পায়খানা থেকে বের হওয়ার পর দু‘আ পাঠ করা | Leave a comment

(১০) ওযূর শুরুতে মুখে নিয়ত বলা

(১০) ওযূর শুরুতে মুখে নিয়ত বলা : মুখে নিয়ত বলার শারঈ কোন বিধান নেই। রাসূল (ছাঃ) ও ছাহাবায়ে কেরাম থেকে এ ধরনের কোন প্রমাণ পাওয়া যায় না। এটি মানুষের তৈরী বিধান। অতএব তা পরিত্যাগ করে মনে মনে নিয়ত করতে হবে।[1] … Continue reading

Posted in 02. পবিত্রতা (ওযূ ও তায়াম্মুম), ওযূর শুরুতে মুখে নিয়ত বলা | Leave a comment

(১১) ওযূর শুরুতে ‘বিসমিল্লা-হির রহমা-নির রাহীম আল-ইসলামু হাক্কুন, ওয়াল কুফরু বাতিলুন, আল-ঈমানু নূরুন, ওয়াল কুফরু যুলমাতুন’ দু‘আ পাঠ করা

(১১) ওযূর শুরুতে ‘বিসমিল্লা-হির রহমা-নির রাহীম আল-ইসলামু হাক্কুন, ওয়াল কুফরু বাতিলুন, আল-ঈমানু নূরুন, ওয়াল কুফরু যুলমাতুন’ দু‘আ পাঠ করা : উক্ত দু‘আর প্রমাণে কোন ছহীহ দলীল নেই। যদিও মাওলানা আশরাফ আলী থানবী (রহঃ) উক্ত দু‘আর সাথে আরো কিছু বাড়তি কথা … Continue reading

Posted in 02. পবিত্রতা (ওযূ ও তায়াম্মুম), ওযূর শুরুতে দু‘আ পাঠ করা | Leave a comment

প্রতিটি অঙ্গ ধৌত করার সময় পৃথক পৃথক দু‘আ পড়া

(১২) প্রতিটি অঙ্গ ধৌত করার সময় পৃথক পৃথক দু‘আ পড়া : ওযূর প্রত্যেক অঙ্গ ধৌত করার সময় পৃথক পৃথক দু‘আ পড়তে হবে মর্মে আশরাফ আলী থানভী (রহঃ) উল্লেখ করেছেন। তবে তিনি কোন দলীল পেশ করেননি। অন্য শব্দে একটি জাল হাদীছ … Continue reading

Posted in 02. পবিত্রতা (ওযূ ও তায়াম্মুম), প্রতিটি অঙ্গ ধৌত করার সময় পৃথক পৃথক দু‘আ পড়া | Leave a comment

(১৩) ওযূর পানি পাত্রের মধ্যে পড়লে উক্ত পানি দ্বারা ওযূ হবে না বলে বিশ্বাস করা

(১৩) ওযূর পানি পাত্রের মধ্যে পড়লে উক্ত পানি দ্বারা ওযূ হবে না বলে বিশ্বাস করা : এটি একটি ভ্রান্ত ধারণা। আশরাফ আলী থানবী (রহঃ) লিখেছেন, ‘উঁচু স্থানে বসবে, যেন ওযূর পানির ছিটা শরীরে আসতে না পারে’।[1] অথচ রাসূলুল্লাহ (ছাঃ) পাত্রের … Continue reading

Posted in 02. পবিত্রতা (ওযূ ও তায়াম্মুম), ওযূর পানি পাত্রের মধ্যে পড়লে উক্ত পানি দ্বারা ওযূ হবে না বলে বিশ্বাস করা | Leave a comment

(১৪) ত্রুটিপূর্ণ কথা বললে ওযূ নষ্ট হয়ে যায়। ওযূর সময় কথা বললে ফেরেশতারা রুমাল নিয়ে চলে যায়

বইঃ জাল হাদীছের কবলে রাসূলুল্লাহ (ছাঃ)-এর ছালাত, অধ্যায়ঃ পবিত্রতা (ওযূ ও তায়াম্মুম), অনুচ্ছেদঃ (১৪) ত্রুটিপূর্ণ কথা বললে ওযূ নষ্ট হয়ে যায়। ওযূর সময় কথা বললে ফেরেশতারা রুমাল নিয়ে চলে যায় (১৪) ত্রুটিপূর্ণ কথা বললে ওযূ নষ্ট হয়ে যায়। ওযূর সময় … Continue reading

Posted in 02. পবিত্রতা (ওযূ ও তায়াম্মুম), ওযূর সময় কথা বললে ফেরেশতারা রুমাল নিয়ে চলে যায়, ত্রুটিপূর্ণ কথা বললে ওযূ নষ্ট হয়ে যায় | Leave a comment

(১৫) কুলি করার জন্য আলাদা পানি নেওয়া

(১৫) কুলি করার জন্য আলাদা পানি নেওয়া : সুন্নাত হল হাতে পানি নিয়ে একই সঙ্গে মুখে ও নাকে পানি দেয়া। রাসূল (ছাঃ) এভাবেই ওযূ করতেন। مَضْمَضَ وَاسْتَنْشَقَ مِنْ كَفَّةٍ وَاحِدَةٍ ‘তিনি এক অঞ্জলি দ্বারাই কুলি করেন ও নাক পরিষ্কার করেন’।[1] … Continue reading

Posted in 02. পবিত্রতা (ওযূ ও তায়াম্মুম), কুলি করার জন্য আলাদা পানি নেওয়া | Leave a comment

(১৬) কান মাসাহ করার সময় নতুন পানি নেওয়া

(১৬) কান মাসাহ করার সময় নতুন পানি নেওয়া : ওযূতে কান মাসাহ করার ক্ষেত্রে মাথা ও কান একই সঙ্গে একই পানিতে মাসাহ করবে। ثُمَّ قَبَضَ قَبْضَةً مِنَ الْمَاءِ ثُمَّ نَفَضَ يَدَهُ ثُمَّ مَسَحَ بِهَا رَأْسَهُ وَأُذُنَيْهِ ‘অতঃপর রাসূল (ছাঃ) এক … Continue reading

Posted in 02. পবিত্রতা (ওযূ ও তায়াম্মুম), কান মাসাহ করার সময় নতুন পানি নেওয়া | Leave a comment

(১৭) মাথা ও কান মাসাহ করার জন্য নতুন পানি না নেওয়া

(১৭) মাথা ও কান মাসাহ করার জন্য নতুন পানি না নেওয়া : অনেকে দুই হাত ধৌত করার পর সরাসরি মাথা মাসাহ করে, নতুন পানি নেয় না। যেমন আশরাফ আলী থানবী (রহঃ) বলেছেন, ‘কান ও মাথা মাছহে করার জন্য নতুন পানি … Continue reading

Posted in 02. পবিত্রতা (ওযূ ও তায়াম্মুম), মাথা ও কান মাসাহ করার জন্য নতুন পানি না নেওয়া | Leave a comment

(১৮) মাথার এক-চতুর্থাংশ মাসাহ করা

(১৮) মাথার এক-চতুর্থাংশ মাসাহ করা : মাথা মাসাহ করার ব্যাপারে অবহেলা ও উদাসীনতা লক্ষ্য করা যায়। কেউ চুল স্পর্শ করাকেই মাসাহ মনে করেন, কেউ মাথার চার ভাগের একভাগ মাসাহ করেন এবং কুরআনের আয়াতের ব্যাখ্যায় নেমে পড়েন। কুদূরী ও  হেদায়ার লেখক … Continue reading

Posted in 02. পবিত্রতা (ওযূ ও তায়াম্মুম), মাথার এক-চতুর্থাংশ মাসাহ করা | Leave a comment